ছোট ছেলেটার ছোঁয়াতে সেদিন নিজেকে ঠিক রাখতে পারিনি: সুস্মিতা সেন

সু,স্মিতা সেন বলিউড থেকে বহুদিন আগেই বিদায় নিয়েছেন। ত,বুও তাঁ,র জন,প্রিয়তা আ,জও শী,র্ষে। তাঁ,কে অসং,খ্য মহিলারা অনু,প্রেরণা হিসাবে দেখে। সুস্মিতার কথা বলা, তাঁ,র জীবন, তাঁর সিদ্ধান্ত, প্রতিটি পদক্ষে,পই মহিলা পুরুষ নির্বি,শেষে সকলকেই জী,বনের কঠিন মুহূ,র্তে এগিয়ে যেতে শেখায়। ২০১৭ সালে এক,টি অ্যাও,য়ার্ড অনুষ্ঠানে উপ,স্থিত থাকতে গিয়েছিলেন সু,স্মিতা সেন।আশপাশে ছিলেন একাধিক দেহর,ক্ষী। যারা অত্য,ন্ত সন্ত,র্পণে সুস্মিতা,কে রক্ষা করে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি,লেন। ত,বুও ভিড়ের মাঝে সেলফি নেওয়ার জন্য ঝাঁপা,ঝাপি করতে থাকে অনেকেই।

সেই সুযোগই নিয়ে বসেছিল একটি ছেলে। ভিড়ের মাঝে সুস্মি,তাকে অশালীন,ভাবে ছোঁ,য়ার চে,ষ্টা করেছিল সেই ছেলেটি। সুস্মি,তা তাঁ,কে তৎক্ষ,ণাৎ ধরে ফেলতেই নিমেষে পা,ল্টে গেল পরি,স্থিতি। সাংঘা,তিক ভিড়। বঙ্গতনয়া, মিস ইউনি,ভার্সকে চোখের দেখা দেখতে কে না চায়। এই পরিস্থি,তির সুযোগ নিয়ে বসে একটি ১৫ বছর বয়সী ছেলে।

যে ভিড়ের মাঝে দেহরক্ষী,দের টপকে ঢুকে পড়ে। এ,বং সুস্মি,তার একেবারে নিকটে চলে আসে। সাধারণত সেলফি তুলতে আসার জন্যই এমন সাহসি,কতা দেখায় ভক্তরা। তবে সেই পনে,রো বছরের ছেলেটির উ,দ্দেশ্য ছিল সুস্মি,তাকে অশ্লীল,ভাবে ছোঁয়া,র।

তবে এই বয়সেই নিজেকে ওয়া,র্ক আউটের মাধ্য,মে মেনটেন করা সু,স্মিতা কা,রও থেকে কম যান না। নিজের তৎপ,রতার কারণে তিনি বুঝতে ছেলেটি সুস্মি,তার দু’টি পায়ের মাঝে ছোঁ,য়া চে,ষ্টা করছে। স,ঙ্গে স,ঙ্গে ধরে ফেলেন ছেলেটির হাত। তার,পরই চমকে যান তিনি। আশা করেননি একটি পনেরো বছরের ছেলেকে তিনি এমন অব,স্থায় ধরবেন। ছেলেটি,কে ধরতেই গলা ধরে হাঁট,তে হাঁ,টতে একপাশে নিয়ে যান।

এ,বং বলেন, “আমি যদি এখন পুলিশ কাছারি করি তাহলে তোমার জীবন ন,ষ্ট হয়ে যাবে।” স,ঙ্গে স,ঙ্গে ছেলে,টি বলতে থাকে সে কি,ছু করেনি। সুস্মি,তার চাপা,চাপি করায়

সে স্বী,কার করে নিজের ভুল। এ,বং কথা দেয় সে আ,র কখ,নও এমন কাজ করবে না। যদিও সুস্মি,তা তাকে খানিক হালকা হু,মকিও দেন। ভবিষ্যতে এমন কাজ আর করলে তিনি ছেলেটির মুখ চিনে রেখেছেন। সেই সময় সঠিক পদ,ক্ষেপ নিতে তাঁ,র এক ফোঁ,টাও সময় লাগবে না।

সুস্মিতা,সুস্মিতা সেন বলিউড থেকে বহুদিন আগেই বিদায় নিয়েছেন। তবুও তাঁ,র জন,প্রিয়তা আ,জও শীর্ষে। তাঁ,কে অসং,খ্য মহিলারা অনু,প্রেরণা হিসাবে দেখে। সুস্মিতার কথা বলা, তাঁ,র জীবন, তাঁ,র সিদ্ধান্ত, প্রতিটি পদক্ষেপই মহিলা পুরুষ নির্বি,শেষে সকলকেই জীবনের কঠিন মু,হূর্তে এগিয়ে যেতে শেখায়। ২০১৭ সালে একটি অ্যা,ওয়ার্ড অনু,ষ্ঠানে উপ,স্থিত থাকতে গিয়েছিলেন সু,স্মিতা সেন।আশপাশে ছিলেন একাধিক দেহরক্ষী। যারা অত্য,ন্ত সন্ত,র্পণে সুস্মিতা,কে রক্ষা করে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। ত,বুও ভিড়ের মাঝে সেলফি নেওয়ার জন্য ঝাঁপা,ঝাপি করতে থাকে অনেকেই। সেই সুযোগই নিয়ে বসেছিল একটি ছেলে। ভিড়ের মাঝে সুস্মি,তাকে অশালীন,ভাবে ছোঁয়া,র চে,ষ্টা করেছিল সেই ছেলেটি। সু,স্মিতা তাঁকে তৎক্ষ,ণাৎ ধরে ফেলতেই নিমেষে পাল্টে গেল পরি,স্থিতি। সাং,ঘাতিক ভিড়। বঙ্গতনয়া, মিস ইউনি,ভার্সকে চোখের দেখা দেখতে কে না চায়। এই পরি,স্থিতির সুযোগ নিয়ে বসে একটি ১৫ বছর বয়সী ছেলে। যে ভিড়ের মাঝে দেহর,ক্ষীদের টপকে ঢুকে পড়ে। এবং সুস্মি,তার একেবারে নিকটে চলে আসে।

সাধা,রণত সেলফি তুলতে আসার জ,ন্যই এমন সাহসিকতা দেখায় ভক্ত,রা। তবে সেই পনেরো বছরের ছেলেটির উদ্দে,শ্য ছিল সুস্মি,তাকে অশ্লী,লভাবে ছোঁ,য়ার।তবে এই বয়,সেই নিজেকে, ওয়ার্ক আউ,টের মাধ্য,মে মেন,টেন করা সুস্মি,তা কা,রও থেকে কম যান না। নিজের তৎপ,রতার কা,রণে তিনি বুঝতে ছেলেটি সুস্মিতার দু’টি পায়ের মাঝে ছোঁ,য়া চে,ষ্টা করছে। স,ঙ্গে স,ঙ্গে ধরে ফেলেন ছেলে,টির হাত। তারপরই চমকে যান তিনি।

আশা করে,ননি এক,টি পনেরো বছরের ছেলেকে তিনি এমন অব,স্থায় ধরবেন। ছেলেটিকে ধরতেই গলা ধরে হাঁ,টতে হাঁট,তে একপা,শে নিয়ে যান। এ,বং বলেন, “আমি যদি এখন পুলি,শ কাছারি করি তাহলে তোমার জী,বন ন,ষ্ট হয়ে যাবে।” সঙ্গে স,ঙ্গে ছেলে,টি বলতে থাকে সে কিছু করে,নি। সুস্মি,তার চাপা,চাপি করায় সে স্বীকা,র করে নিজের ভুল। এ,বং কথা দেয় সে আ,র কখন,ও এমন কাজ করবে না।

য,দিও সুস্মি,তা তাকে খানিক হালকা হুম,কিও দেন। ভবি,ষ্যতে এমন কাজ আর করলে তিনি ছেলেটির মুখ চিনে রেখেছেন। সেই সময় সঠিক পদ,ক্ষেপ নিতে তাঁ,র এক ফোঁ,টাও সময় লাগবে না।